ভাবসম্প্রসারণ

রাত যত গ‘ভীর হয় ,প্রভাত তত নিকটে আসে ভাবসম্প্রসারণ

Table of Contents

রাত যত গ‘ভীর হয় ,প্রভাত তত নিকটে আসে ।

রাত যত গ‘ভীর হয় ,প্রভাত তত নিকটে আসে ।


ভাব সম্প্রসারণ : মানুষের জীবনে সুখ –দুঃখ পালাক্রিমে আসে ।কাজেই কখনো দুঃখ এল ভেঙে পড়লে চলবে না ,কারণ দুঃখের আড়ালেই সুখ লুক্কায়িত ।

আকাশ যখরন মেঘাচ্ছন্ন থাকে তখন সূযের প্রখর আলোতে পৃথিবী উজ্জ্বল ও আলোকিত হয়ে ওঠে না ।অন্যদিকে সূয যখন মেঘে ডেকে যায় তখন সমস্ত পৃথিবীর ও অন্ধকারে ঢেকে যায়,নিস্তেজ হয়ে পড়ে ।অমাবস্যার গভীর আঁধারেও চাঁদের আলো হারিয়ে যায় ।চাঁদের স্নিগ্ধ আলো তখন কালো অন্ধকারে তলিয়ে যায় ।প্রকৃতপক্ষে মেঘের আড়ালে সূয ঢাকা পড়লেও তা সাময়িক ,কিছুক্ষণ পর আবার মেঘ কেটে যায় ।অন্ধকারে চাঁদের আলো সাময়িক ঢাকা পড়লেও অন্ধকারের বুকে চাঁদের আলো আবার সারা পৃথিবীকে উদ্ভাসিত করে দেয় ।মানুষের জীবনও তেমনি ।মানুষের জীবন হলো সুখ এবং দুঃখ দিয়ে গাঁথা দিয়ে এক বিচিএ মালার মতো ।নিরবচ্ছিন্ন সুখ কিংবা ,নিরবচ্ছিন্ন দুঃখ কোনো মানুষের জীবনে স্থায়ী হয় না ।তার জীবনে যখন আসে দুঃখের অমানিশা ,দুঃখের অমানিশা,দুঃখ –বেদনা তখন অসহ্য বোধ হয় ।মনে হয় সেই দুঃখ –রজনীর বুজি শেষ নেই ।কিন্তু অবশেষে তার দুঃখ –বেদনার সেই অমানিশায় অবসান হয় ।পূর্বদিগকে উদিত হয় সুখের সূয ।কাজেই দুঃখ –কষ্ট ,বিপদ –বাধা সাময়িক ।তা দেখে মানুষের ভয় পাওয়া বা বেদনায় ভেঙে পড়া উচিত নয় ।তাই আকস্মিক দূযোগ ও বিপদে ভেঙে না পড়ে প্রতিকূলতা মোকাবেলায় ধৈয ধরতে হয় দৃঢ়চিওে ।বিপদ –বাধাকে জয় করার জন্যে নিতে হয় সংগ্রামের প্রস্তুতি ।তাই জীবনে অমারাত্রির কালো আঁধার দেখে শঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই ।কারণ,নিকষ কালো অন্ধকারই কেবল মানুষের জীবনে অনিবায সত্য নয় ,সেই আঁধারের বুকেই আবার উদিত হয় অস্তমিত চাঁদ আর রাতের পরেই প্রভাত সূযের আবির্ভাব ঘটে ।মানুষের জীবনেও তেমনি দুঃখের আঁধারে সুখের আলো লোপ পায় ,কিন্তু তা ক্ষণিকের জন্যে ।দুঃখের পর সুখ আসতে বাধ্য ।

মানব জীবনে আলো –অন্ধকার ,সুখ –দুঃখ পালাক্রমে আসে ।এর কোনোটিই এককভাবে আসে না ।সুখ –দুঃখ সাখল্য –ব্যর্থতা ইত্যাদির পালাবদলের মধ্যে দিয়েই মানুষের জীবনচক্র পূর্ণ হয় ।

 রাত যত গভীর হয় ,প্রভাত তত নিকটে আসে ।

 মূলভাব : দুঃখের আড়ালেই সুখ থাকে ।সুখকে পেতে হলে দুঃখকে অবশ্যই অতিক্রম করতে হয় ।

সম্প্রসারিত ভাব : পৃথিবীতে নিরবচ্চিন্ন সুখ বলে কিছু নেই ।সুখের পরে আসে দুঃখ ও বেদনা ।ঝতু চক্রের মতোই মানুষের জীবনে এদের আবির্ভাব ঘটে ।দুঃখকে এড়িয়ে যাওয়ার কোনো উপায় নেই ।তাই দুঃখের অবসান হয়ে সুখ দেখা দেবেই ।আকাশে মেঘ এসে ‍সূযকে ঢেকে দিতে পারে ।মেঘের আড়ালেই সূযের অবস্থান ।তাই মেঘ সরে আবার সূযের আলো দেখা যায় ।তেমনি রাতের অন্ধকার নেমে এল হতাশ হবার কিছুই নেই ।কারণ রাতেই আমরা দিনে হারিয়ে যাওয়া চাঁদকে দেখতে পাই ।সুতরাং জীবনে দুঃখের অন্ধকার  এলে হতাশু হবার কিছুই নেই ।কারণ রাতের আমরা দিনে হারিয়ে যাওয়া চাঁদকে দেখেতে পাই ।সুতরাং দুঃখের অন্ধকার এলে হতাশ হয়ে হাল ছেড়ে দেয়া ঠিক নয় ,বরং জীবন সম্পর্কে বাস্তব দৃষ্টিভঙ্গি গ্রহণ করে নতুন উদ্যমে ধৈয ও সাহসের সঙ্গে কর্তব্য সম্পাদন করে সুখের আলো জ্বালিয়ে নিতে হয় ।দুঃখকে জয় করতে হয় জীবনের চলার গতি দিয়ে ।                                                                                           

   রাত যত গ‘ভীর হয় ,প্রভাত তত নিকটে আসে ।

ভাব সম্প্র্রসারণ : অবিরাম সংগ্রামের মধ্য দিয়ে নানা বাধাবিপওি উপেক্ষা করে মানুষকে অগ্রসর হতে হয় ।মেঘাচ্ছন্ন আকশে মেঘের অন্তরালে সূয ঢাকা পড়লে তাতে বিব্রত হওয়ার কোনো কারণ নেই ।এটা ক্ষণিক বাধা ছাড়া আর কিছুই নয় ।

মানুষের জীবন হলো সুখ এবং দুঃখ দিয়ে গাঁথা এক বিচিএ মালার মতো ।নিরবচ্ছিন্ন সুখ কিংবা দুঃখ কোনে মানুষের জীবনে স্থায়ী হয় না ।তার জীবনে যখন আসে দুঃখের অমারাত্রি ,দুঃখ –বেদনা তখন অসহ্য বোধ হয় ।মনে হয় সে দুঃখ –রজনীর বুজি শেষ নেই ।কিন্তু অবশেষে তার দুঃখ বেদনার সে অমারা্ত্রির অবসান হয় ।পূর্ব দিগন্তে উদিত হয় সুখের সূয ।কিন্তু সে সুখও তার ভাগ্যে চিরস্তায় হতে পারে না ।নদীর জোয়ারভাটার মতো তার জীবনে আবার আসবে দুঃখ ,দুঃখের পর সুখ ।কখনও কখনও আবার মানুষের জীবনের আকাশে জমাট বাঁধে দুঃখ এবং আপদ-বিপদের ঘন কালো মেঘ ।অসহায় মানুষ সে ঘোর বিপদের কালো মেঘ দেখে পড়ে ভয়ে বিহ্বল ।কিন্তু অচিরে সেই কালো মেঘ কেটে ‍গিয়ে দেখা যাবে সূযের মুখ ।বিপদ –বাঁধা কেটে গিয়ে দেখা দেবে নতুন সূযোদয় ।দুঃখ কষ্ট ,বিপদ –বাঁধা সাময়িক ।তা দেখে মানুষের ভয় পাওয়া বা বেদনার ভেঙে পড়া উচিত নয় ।

মানুষের পার্থিব জীবন সংঘাতপূর্ণ ,তথাপি এখানে হতাশ হওয়ার কিছু নেই ; বর‌্; ধৈয না হারিয়ে দৃঢ়ভাবে যেতে পারলেই জীবন হয়ে উঠবে সার্থক ও সাফল্যমন্ডিত ।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button